ভিন্ন নাম ও ভিন্ন স্বাদের কিছু হালুয়া

‘হালুয়া’ অদ্ভুত নামের এই খাবারটির সাথে আমরা প্রায় সকলেই পরিচিত। আমাদের প্রায় সকলের বাড়িতেই বছরের কোনো না কোনো সময় এই খাবারটি তৈরি করা হয়। হালুয়া মূলত মিষ্টি স্বাদের একটি খাবার। নানারকম উপকরণ ব্যবহার করে, নানা স্বাদের হালুয়া তৈরি করা যায়।

চালের আটার রুটি কিংবা হালকা তেলে ভাজা পরোটার সাথে খাওয়ার জন্য হালুয়ার জুড়ি নেই। যারা মিষ্টি স্বাদের খাবার পছন্দ করেন, তাদের অনেকের কাছে এই খাবারটি বেশ প্রিয়। কেউ কেউ রুটি কিংবা পরোটা নয়, শুধু হালুয়া খেতেও পছন্দ করেন।

আমাদের দেশে অনেক রকম হালুয়ার দেখা পাওয়া যায়। আমাদের দাদী, নানী কিংবা মা, চাচীরা বেশ ভালোই হালুয়া তৈরি করেন বাড়িতে। বেশ কিছু খাবার হোটেলে কিংবা মিষ্টির দোকানেও কিনতে পাওয়া যায় নানারকম হালুয়া।

চলুন, জেনে নেয়া যাক জানা-অজানা বেশ কিছু ভিন্ন স্বাদের, ভিন্ন নামের হালুয়া সম্পর্কে।

১. বুটের হালুয়া

বুটের ডালের হালুয়া; source: youtube.com

সবচেয়ে বেশি চেনা-জানা যেই হালুয়াগুলো তার মধ্যে অন্যতম ‘বুটের হালুয়া’। আমরা প্রায় সকলেই কোনো না কোনো সময়, কোনো না কোনোভাবে এই হালুয়া খেয়েছি হয়তো। সাধারণত বুটের ডালের সাহায্যে তৈরি হয় বলেই এই হালুয়াকে বুটের হালুয়া বলা হয়। এক্ষেত্রে হালুয়া তৈরির আগে বুটের ডাল সেদ্ধ করে নিতে হয়।

প্রথমত, বুটের ডাল সেদ্ধ করে পিষে নিতে হয় (আজকাল সহজ উপায়ে ব্লেন্ডার করে নেয়া হয়)। তারপর গরম ঘি-তে দিয়ে ভুনা করতে হয়। চুলার আঁচে বুটের ডাল কিছুটা বাদামী রং হয়ে এলে তাতে চিনি এবং দুধ মেশাতে হয়। তারপর একসময় সব উপকরণ ঘন হয়ে গেলেই কাজ শেষ। গরম গরম চালের রুটির সাথে এই হালুয়া খেতে বেশ মজা।

২. গাজরের হালুয়া

গাজরের হালুয়া; source: jugantor

বুটের ডালের হালুয়ার মতই খুব চেনা-জানা এক নাম ‘গাজরের হালুয়া’। নামেই প্রকাশ পাচ্ছে এই হালুয়া তৈরির মূল উপকরণ কী! মূলত গাজরের মাধ্যমেই তৈরি হয় গাজরের হালুয়া আর নামটি মূল উপকরণের নামেই। গাজরের হালুয়া বেশ সুস্বাদু একটি খাবার, পাশাপাশি স্বাস্থ্যকরও।

গাজরের হালুয়া তৈরিতে গাজর মিহি কুচি করে কেটে দুধ দিয়ে সেদ্ধ করতে হবে। গাজর গলে যাওয়ার পর তাতে ভালোভাবে ঘি, চিনি ও ডিম মেশাতে হবে। তারপর সব উপকরণ ঘন হয়ে গেলে তাতে গোলাপ জল ও কিছু মসলা মেশানো যেতে পারে আলাদা স্বাদ ও ঘ্রাণ পেতে।

৩. ডিমের হালুয়া

মজাদার ডিমের হালুয়া; source: ntvbd.com

ডিম দিয়ে তৈরি করা হয় বলে এই হালুয়াকে ডিমের হালুয়া বলা হয়। বুটের হালুয়া কিংবা গাজরের হালুয়ার থেকে ইদানিং খুব বেশি পিছিয়ে নেই ডিমের হালুয়া। প্রস্তুত প্রণালী সহজ বলে এর জনপ্রিয়তা আরো বেশি বেড়ে গেছে।

প্রথমত, ডিমের হালুয়া তৈরিতে ডিমের সাদা অংশ ও কুসুম আলাদা করে নিতে হবে। তারপর তাতে আলাদা করে চিনি মেশাতে হবে। হাড়িতে ঘি ও গরম মসলা দিয়ে ফুটানোর পর তাতে চিনি, ডিম, গোলাপ, জাফরান সব একসাথে মিশিয়ে চুলায় বসিয়ে মেশাতে হবে। এভাবে জ্বাল দিতে দিতেই তৈরি হয়ে যাবে মজাদার ডিমের হালুয়া।

৪. ময়দার হালুয়া

ময়দার হালুয়া; source: bhorerkagoj

ময়দার মাধ্যমেও হালুয়া তৈরি করা যায়। ময়দার সাথে সাথে এই হালুয়া তৈরিতে প্রয়োজন হয় চিনির ঘন শিরা, গরম মসলা আর গোলাপ। ব্যস, এই অল্প কিছু উপকরণ ব্যবহার করেই তৈরি করা যায় মজাদার ময়দার হালুয়া। এই হালুয়া তৈরিতে খুব বেশি সময়ও ব্যয় হয় না।

ময়দার হালুয়া তৈরির জন্য প্রথমে ঘি-তে ময়দা ও মসলা একসাথে বাদামী করে ভেজে নিতে হবে। তারপর তাতে চিনির শিরা ও গোলাপ যোগ করতে হবে। এভাবে আগুনের তাপে জ্বাল দিতে দিতে ঘন হয়ে তৈরি হয়ে যাবে ময়দার হালুয়া। গোলাপ আর মসলা হালুয়ায় সুন্দর ঘ্রাণ আনে। এতে খাবারের প্রতি আরো আকর্ষণ বেড়ে যায়।

৫. সুজির হালুয়া

সুজির হালুয়া; source: youtube.com

ছোটবেলা থেকেই আমরা অনেকে ‘সুজির হালুয়া’ ব্যাপারটির সাথে পরিচিত। সুজি, পানি ও চিনির সাহায্যে রান্না করে এই খাবারটি তৈরি করা হয়। স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ও শিশুরা সহজে খেয়ে নিতে পারে বলে এই হালুয়া ছোটবেলা থেকেই শিশুদের খাওয়ানো হয়ে থাকে কিংবা বলা উচিত আমাদের মায়েরা তার শিশুকে সুজির হালুয়া খাইয়ে থাকেন।

তবে শিশুদের জন্য না হয়ে যদি এই হালুয়া তৈরি হয় বাড়ির সবার জন্য কিংবা বিশেষ কোনো আয়োজনে, তবে তাতে যোগ হয় আরো অনেক কিছু। বেড়ে যায় হালুয়া তৈরিতে উপকরণের পরিমাণ। সাথে বেড়ে যায় স্বাদ, ঘ্রাণ ও হালুয়ার সৌন্দর্য। সেক্ষেত্রে সুজির পাশাপাশি হালুয়া তৈরিতে ব্যবহার করা হয় চিনি, ঘি, মসলা, কিসমিস ও পেস্তা বাদাম।

৬. অন্যান্য সবজির হালুয়া

মিষ্টি আলুর হালুয়া; source: NTV

বুটের ডাল, গাজর, ডিম, ময়দা ও সুজির পাশাপাশি অনেক সবজি ব্যবহার করেও হালুয়া তৈরি করা যায়। এসব হালুয়া খেতে বেশ মজাদার। যেসব সবজি দিয়ে হালুয়া তৈরি করা যায় তারমধ্যে রয়েছে- লাউ, চালকুমড়া, মিষ্টিকুমড়া, ফুলকপি, মিষ্টি আলু, কাঁচা পেঁপে ইত্যাদি।

এক্ষেত্রে, প্রথমে বুটের হালুয়ার মতই মূল উপকরণকে সেদ্ধ করে নিতে হবে। তারপর হাতে চেপে ভেতরে জমা পানি বের করে ফেলতে হবে। তারপর ঘন দুধ বা ক্ষীর যথেষ্ট পরিমাণে দিতে হবে তাতে। এভাবেই চুলার তাপে জ্বাল দিতে দিতে তৈরি হয়ে যাবে হালুয়া। এছাড়া একই পদ্ধতিতে সেদ্ধ আপেল কিংবা কমলা দিয়েও এ খাবারটি তৈরি করা যায়।

ফিচার ইমেজ- bhorerkagoj.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here