গ্রিসের জনপ্রিয় স্ট্রিট ফুড

জর্জ বার্নাড শো মনে করতেন খাদ্যের চেয়ে বড় কোনো ভালবাসা নেই। তার কথা থেকে বোঝা যায়, তিনি খাবার ভীষণ ভালবাসতেন। প্রতিটি মানুষ বেঁচে থাকার প্রয়োজনে খাবার খায়। তবে কেউ কেউ খাবার খাওয়ার জন্য বেঁচে থাকে। কারণ তারা ভোজন বিলাসী। খাবার খেলে ক্ষুধা মেটে এবং মনের প্রশান্তি মেলে। মোটকথা, খাবার খেলে পরিতৃপ্তি পাওয়া যায়।

একেক দেশের কৃষ্টি, সংস্কৃতি, খাদ্যাবস্থা একেক রকম। প্রতিটি দেশের আলাদা সংস্কৃতি ও খাদ্যের ধরন রয়েছে। তেমনি গ্রিসের রেস্টুরেন্ট কিংবা পথের খাবারেও রয়েছে নিজস্বতার ছোঁয়া। গ্রিসের অধিবাসীরা রেস্টুরেন্টের খাবার যেমন ভালবাসেন, তেমন পথের খাবারও ভালবাসেন। আপনি যদি কখনো গ্রিসে যান তাহলে পথের খাবারগুলো খেয়ে দেখতে পারেন। পথে পথে মজাদার, রুচিসম্মত ও সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায় গ্রিসে। জেনে নিন, গ্রিসের জনপ্রিয় স্ট্রিট ফুড সম্পর্কে।

জাইরো

গ্রিসের পথে পথে জাইরোর সুস্বাদু ও মজাদার ঘ্রাণ পাওয়া যায়। দূর থেকে জাইরোর ঘ্রাণ অনুভব করে খাওয়ার জন্য ছুটে আসে ভোজনবিলাসীরা। দোকানগুলো ভ্রাম্যমান দোকানের মতো দেখতে হলেও খাবারের স্বাদ নিয়ে কারো মনে কোনো সন্দেহ নেই। একটি লম্বা কাঠিতে মাংস ঢুকিয়ে আগুনে পোড়া দিয়ে রান্না করা হয় জাইরো।

জাইরো; ছবিসূত্র: foodofy.com

এই খাবারটি অনেকটা তুর্কির কাবাবের মতো দেখতে। জাইরোর মাংসগুলো পিঠা কিংবা অন্য যেকোনো রুটির সাথে খাওয়া হয়। জাইরো, পিঠা কিংবা রুটি ও সসের মিশেলে খাবার খেলে অসাধারণ স্বাদ পাওয়া যায়। আপনি যদি কখনো গ্রিসে যান তাহলে অবশ্যই জাইরো খেয়ে দেখবেন।

কুলুরি

গ্রিসের পথের খাবারের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় খাবার হলো কুলুরি। কুলুরি দেখতে পিঠার মতো। খুব ক্রিস্পি ধরনের এই খাবারটি বেকারিতে পাওয়া যায়। বেকারি ছাড়াও গ্রিসের পথে পথে পাওয়া যায়। কুলুরি খেতে বেশ মজা ও মচমচে। এর ওপরে তিল দেওয়া থাকে।

কুলুরি; ছবিসূত্র: foodofy.com

আটা, বিভিন্ন ফ্লেভারের রুটি, অলিভ অয়েল, দারুচিনি, চিজের মিশেলে এই খাবার প্রস্তুত করা হয়। স্ন্যাক জাতীয় খাবারের মধ্যে এর বেশ সুনাম রয়েছে।

গ্রিক বার্গার

বার্গার খেতে কে না ভালবাসে। আমাদের দেশে যেমন অধিকাংশ মানুষ বার্গার খেতে ভালবাসে, তেমনই গ্রিসেও অধিকাংশ মানুষ বার্গার খেতে ভালবাসে। যদিও বার্গার আমাদের দেশিয় খাবার নয়। অন্যান্য দেশ থেকে আমাদের দেশে বার্গার খাওয়ার রীতি ও প্রচলন এসেছে। গ্রিসের পথে পথে মজাদার টপিংসের বার্গার পাওয়া যায়।

গ্রিক বার্গার; ছবিসূত্র: foodofy.com

এই বার্গার একবার খেলে আপনার মুখে এর স্বাদ লেগে থাকবে। তাছাড়া বার্গারের সাথে যে সস দেওয়া হয় তা অন্যরকম স্বাদের। রুটি, টপিংস বা প্যাটি ও সসের মিশেলে বার্গার খেতে বেশ মজাদার লাগে। আপনার যদি কখনো গ্রিসে যাওয়ার সুযোগ হয় তাহলে গ্রিসের বার্গার খেতে ভুলবেন না কিন্তু।

সোয়ুবলাকি

সোয়ুবলাকি গ্রিসের আরেকটি মজাদার খাবার। গ্রিসে বেড়াতে গেলে কিংবা অন্য কোনো কাজে গেলে এই খাবারটি চেখে দেখতে পারেন। এই খাবারটি খেলে এক নতুন অভিজ্ঞতার জন্ম হতে পারে। স্ন্যাকস জাতীয় খাবার হিসেবে এর পরিচিতি বেশ।

সোয়ুবলাকি; ছবিসূত্র: foodofy.com

মাংস ভাজা, সবজি, মশলা ইত্যাদি একটি কাঠের স্কুয়ারে ঢুকিয়ে ভালো করে গ্রিল করা হয়। এই খাবারটি সোয়ুবলাকি নামে পরিচিত। এটি পিঠা, রুটি কিংবা ভাতের সাথে খাওয়া যায়। তবে প্রতি কামড়ে কামড়ে সোয়ুবলাকি পড়লে খেতে ভীষণ মজা লাগে।

মিসসাকা

বেগুন ও মাংস কখনো একত্রে খেয়েছেন? না বোধহয়। গ্রিসের অধিবাসীরা বেগুনের সাথে মাংসের মিশেলে মিসসাকা নামের খাবারটি খেয়ে থাকে। মিসসাকা একটি মজাদার খাবার। এটি রেস্টুরেন্টের খাবার নয়। গ্রিসের পথের খাবার তথা স্ট্রিট ফুডের মধ্যে মিসসাকা অন্যতম।

মিসসাকা; ছবিসূত্র: foodofy.com

মিসসাকা নামের খাবারটি বেগুণ ও মাংসের সংমিশ্রণে প্রস্তুত করা হয়। বেগুন ও মাংস আলাদা ভাবে রান্না করে তার উপরে সস মিশিয়ে অনেকটা স্যান্ডউইচের মতো করে বেক করে পরিবেশন করা হয়।

গ্রিসের জলপাই ও জলপাই তেল

জলপাই ও জলপাই তেল গ্রিসের খাবার। এটি তাদের সংস্কৃতির অংশ। বহু প্রাচীনকাল থেকে তারা জলপাই ও জলপাইয়ের তেল ব্যবহার করে আসছে। এই দেশটি বিভিন্ন জলপাইয়ের আবাস্থল।

জলপাই; ছবিসূত্র: foodofy.com

তারা জলপাই খেতে খুব ভালবাসে। বিভিন্ন রান্নায় জলপাই তেলের ব্যবহার করে স্বাচ্ছন্দ্য লাভ করে। তারা জলপাই এর সকল উপকারিতার কথা জানে এবং হয়তো তাই পথে পথে এগুলো পাওয়া যায়।

ডোলমাডিস

আমরা সবাই রোল ও ঢেকে রাখা খাবার সম্পর্কে জানি। কিন্তু ডোলমাডিস খাবারের পরিবেশন ও প্রস্তুত প্রণালী ওগুলো থেকে ভিন্ন।

ডোলমাডিস; ছবিসূত্র: foodofy.com

গ্রিক ডোলমা বা ডোলমাডিস প্রস্তুত করতে আঙুর পাতা দিয়ে মুড়িয়ে টমেটো, পেঁয়াজ, রসুন, বেগুন, ধুন্দল ইত্যাদি রান্না করা হয়।

গ্রিক সালাদ

গ্রিসের রন্ধন প্রণালীর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো সালাদ। সালাদ খুব পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকর। টমেটো স্লাইস, শসা, মুশি, বেগুনি জলপাই, লবণ, অরগানো, অলিভ অয়েল ও অন্যান্য উপাদানের মিশেলে গ্রিক সালাদ প্রস্তুত করা হয়।

গ্রিক সালাদ; ছবিসূত্র: foodofy.com

প্রতিটি উপাদান পর্যাপ্ত পরিমাণে নেওয়া হয় এবং বলের মধ্যে রেখে দারুণভাবে পরিবেশন করা হয়। আপনি যদি কখনো গ্রিসের সালাদ খেয়ে দেখার সুযোগ পান তাহলে খেতে পারবেন।

পেনিরলি পাইডি

গ্রিসের স্ট্রিট ফুডের মধ্যে পেনিরলি পাইডি অন্যতম। এই খাবারটি বেশ সুস্বাদু ও মজাদার। রুটির ভেতরে ক্রিমি ও আঠালো এক ধরনের উপাদান থাকে যা খেতে খুব মজা। গ্রিসের পথে পথে পেনিরলি পাইডি নামের খাবারটি পাওয়া যায়। পেনির মানে ইতালীয় ভাষায় পনির এবং এই গ্রিক রুটি ইতালির পেনিরলি পাইডের কাছে কিছুটা কাছাকাছি।

পেনিরলি পাইডি; ছবিসূত্র: foodofy.com

ময়দার ডো দেখতে অনেকটা নৌকা আকৃতির এবং এর ভেতরে পনির, চিজ, চিনি ও লবণ দেয়া থাকে। বর্তমানে এর ভেতরে টমেটো, ধুন্দল, জলপাই ইত্যাদি ব্যবহার করা হয়। গ্রিসের গেলে এই মজাদার ও সুস্বাদু খাবারটি চেখে দেখতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here